শুরু করছি আল্লাহ্‌র নামে যিনি পরম করুনাময় অতি দয়ালু, মেহেরবান ও ক্ষমাশীল

১৯তম এবং ২০তম সপ্তাহ: কেমন কাটবে আপনার গর্ভাবস্থার প্রত্যেকটি সপ্তাহ

মা ও শিশু

কেমন কাটবে আপনার গর্ভাবস্থার প্রত্যেকটি সপ্তাহ

১৯তম এবং ২০তম সপ্তাহ

সন্তান সৎ ও নেক হওয়ার অন্যতম শর্ত হচ্ছে, সন্তান মায়ের গর্ভে থাকা অবস্থা থেকেই কিছু বিধিমালা মেনে চলা। সন্তান যখন মায়ের গর্ভে থাকে, তখন ভ্রুণ অবস্থা থেকে মায়ের যাবতীয় আমল ও আখলাক গর্ভে থাকা সন্তানের ওপর বিশেষ প্রভাব বিস্তার করে। তাই এক্ষেত্রে গর্ভবতী মায়ের প্রধান কর্তব্য হচ্ছে, গোনাহ ও আল্লাহর নাফরমানি থেকে নিজেকে বিরত রাখা। আর বাবার দায়িত্ব হচ্ছে, স্ত্রী-সন্তানের জন্য হালালভাবে উপার্জিত সম্পদ দিয়ে পরিবারের ব্যয় বহন করা।
এ ছাড়া আরও কিছু পালনীয় বিষয় হলো
১. সন্তান গর্ভে থাকা অবস্থায় তার মঙ্গলকামনায় বেশি বেশি দোয়া করা ও আল্লাহর রহমত কামনা করা।
২. প্রতিদিন পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করা।
৩. প্রতিদিন ফজরের নামাজের পর এবং রাতে ঘুমানোর পূর্বে ১১ বার সূরা ইখলাস পাঠ করা।
৪. প্রতিদিন সকাল-সন্ধ্যায় প্রিয় নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের প্রতি দরূদ পাঠ করা।
৫. যদি সম্ভব হয় তাহলে প্রতিদিন সূরা ইয়াসিন তেলাওয়াত করা।
৬. দান-খয়রাত করা। মানুষের সঙ্গে ভালো ব্যবহার করা।


বিঃ দ্রঃ ছেলে অথবা সবই আল্লাহর দান; আল্লাহ্‌ বলেনঃ “যাকে ইচ্ছা কন্যা-সন্তান এবং যাকে ইচ্ছা পুত্র সন্তান দান করেন। অথবা তাদেরকে দান করেন পুত্র ও কন্যা উভয়ই এবং যাকে ইচ্ছা বন্ধ্যা করে দেন।” সূরা শুরাঃ ৪২/ ৪৯-৫০

এই দুই সপ্তাহে আপনার শিশুর জ্ঞানেন্দ্রিয়ের ক্রমবিকাশ ঘটছে । তার মস্তিষ্ক গন্ধ, স্বাদ, শ্রবণ, দৃষ্টি, এবং স্পর্শের জন্য বিশেষ এলাকা মেনানীত করতে শুরু করেছে । কিছু গবেষণায় এটা বলছে যে, আপনার শিশু এখন আপনার গলার স্বর শুনতে সক্ষম । তাই এখন আপনি নির্দ্বিধায় ওর জন্য জোরে জোরে বই পড়তে , ওর সাথে কথা বলতে ও গান গাইতে পারেন । এই সময় আপনার শিশুর ওজন প্রায় ২৪০.৯-২৯৭.৬ গ্রাম এবং তার দৈর্ঘ্য প্রায় ৬-৬.৫ ইঞ্চি হয় । সপ্তাহ ১৯ আপনার শিশুর ত্বক এখন বিকশিত হচ্ছে এবং সেটা ত্বকের নীচের রক্তনালীসমূহের কারণে রক্তিম দেখতে লাগছে । আপনার শিশুর ত্বকের ওপর ভার্নিক্স নামক একটি মাখনের মতো সাদা প্রতিরক্ষামূলক আবরণের বিকাশ হতে শুরু করেছে । তার চোখ ও কান, এখন তাদের চূড়ান্ত অবস্থানে আছে যদিও তার চোখ এখনও বন্ধ আছে । শিশুর শরীরে চর্বির বিকাশ শুরু হয়ে গেছে কিন্তু তাকে এখনও বেশ চর্মসার দেখতে লাগছে । নমেলানকোলাইটিসের কারণে আপনার শিশুর ত্বকের কোষে ত্বক রঙ্গক মেলানিন উৎপন্ন হওয়া আরম্ভ করেছে যেটা তার জন্মের পরে এমনকি তার শৈশবকাল অব্দি অব্যাহত থাকবে । উনবিংশ সপ্তাহের জন্য পরামর্শ আপনার শিশুর বৃদ্ধি এখনও হতে থাকার ফলে আপনি এখন তলপেটে যন্ত্রনা, মাথা ঘোরা, অম্বল, কোষ্ঠকাঠিন্য, শিরটান, গোড়ালি ও পায়ের হালকা ফোলা এবং পিঠব্যথা অনুভব করতে পারেন । প্রসারিত রক্তনালীর কারণে আপনার মুখ, কাঁধ, এবং হাতের উপর অতি ক্ষুদ্র, অস্থায়ী লাল চিহ্ন (যাকে স্পাইডার নেভি বলা হয়)দেখা দিতে পারে । একই ভাবে আপনার গোড়ালি ফুলে যেতে পারে আবার দৃষ্টির পরিবর্তনও হতে পারে যেটা গর্ভাবস্থাকালীন হরমোন আপনার চোখে তরলের একটি আচ্ছাদন তৈরী করার কারণে হতে পারে । হরমোনের জন্য আপনার চোখের বক্রতা মধ্যে পরিবর্তন ঘটে যা আপনার দৃষ্টিশক্তির উপর প্রভাব ঘটায় । কিন্তু এই পরিবর্তন সাধারণত অস্থায়ী তাই চিন্তা করার কিছুই নেই । তবে, কিছু গুরুতর দৃষ্টি সমস্যা, গর্ভাবস্থায় ডায়াবেটিস বা উচ্চ রক্তচাপের একটি নিদর্শন হতে পারে, তাই উল্লেখযোগ্য কোনরকম পরিবর্তন দেখলে আপনার ডাক্তারের সাথে কথা বলে নিশ্চিত হতে পারেন । এছাড়াও হরমোন আপনার অশ্রু উৎপাদন প্রভাবিত করতে পারে যার ফলে আপনার চোখ একটু শুষ্ক এবং খসখসে মনে হতে পারে । উনবিংশ সপ্তাহের জন্য যত্ন সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ কথা হলো নিজের যত্ন নিন । শিশুর এই দ্রুত বর্ধনশীল সময়ে নিজেকে অতিরিক্ত ক্লান্ত করবেন না । এখন যদি আপনার মাড়ি থেকে রক্তপাত হয় বা মাড়ি বেশি সংবেদনশীল মনে হয় তাহলে জানবেন এটাও হচ্ছে শরীরে হরমোনের কারণেই । তাই ডেন্টাল চেকআপ এবং চিকিৎসার জন্য আপনার ডাক্তারের সাথে অ্যাপয়েন্টমেন্ট করুন । সপ্তাহ ২০ আপনার শিশু এখন সবরকমের শব্দ শুনতে পাচ্ছে যেমন আপনার গলার স্বর, হৃদস্পন্দন, এমনকি আপনার পেটের গুড়গুড় শব্দও । সেইসাথে আপনার শরীরের বাইরের শব্দও শুনতে পাচ্ছে । এখন যদি আপনার কাছাকাছি একটি উচ্চনিনাদী শব্দ সৃষ্ট হয় তাহলে শিশু তার হাত দিয়ে তার কান ঢেকে ফেলবে এমনকি চমকে উঠতে বা লাফিয়ে উঠতেও পারে । এখন শিশু খুবই নড়াচড়া করবে যা ওর সুস্থতা ও সক্রিয়তার লক্ষণ । আপনার শিশুর আগের থেকে বেশী ঢোক গিলতে পারছে, যা ওর পাচনতন্ত্রের জন্য একটি ভাল অভ্যাস । বিংশতিতম সপ্তাহের জন্য পরামর্শ আপনি এখন আপনার গর্ভাবস্থার একটি মাঝামাঝি জায়গায় এসে পৌঁছেছেন । আপনার কোমরের ভাঁজ মোটামুটি মিলিয়ে যেতে শুরু করেছে । এখন আপনার মূত্রনালীর নির্দিষ্ট পেশী শিথিল হয়ে যাওয়ার কারণে আপনার মূত্রাশয় সংক্রমণের সম্ভাবনা বেড়ে গেছে । আপনার শ্বাস-প্রশ্বাস এখন গভীর হতে শুরু করেছে এবং আপনি স্বাভাবিকের তুলনায় বেশী ঘামছেন কারণ এখন আপনার থাইরয়েড গ্রন্থি অনেক বেশী সক্রিয় হয়ে আছে । বিংশতিতম সপ্তাহের জন্য যত্ন এইসময়ে কোমরের ব্যথা থেকে বিরাম পেতে বসার সময় পায়ের নীচে একটি ছোট টুল রাখুন, ঘুমোনোর সময় কোমরের নীচে একটি ছোট বালিশ ব্যবহার করুন, দীর্ঘ সময়ের জন্য দাঁড়িয়ে থাকবেন না । গর্ভাবস্থায় আপনার শরীরের সাথে আপনার বিস্তৃত রক্ত ভলিউমের সামঞ্জস্য রাখতে সেইসাথে আপনার ক্রমবর্ধমান শিশুর এবং অমরার জন্য শরীরে বেশী পরিমাণে আয়রন প্রয়োজন । মাটন, বীফ জাতীয় মাংস গর্ভবতী মহিলাদের শরীরে লোহা উৎপাদনের এক সেরা উৎস । এছাড়া শিম, সয়া সস দ্রব্যজাত বস্তু, শাকপাতা, আলুবোখারা, কিশমিশ এবং আয়রন সমৃদ্ধ খাদ্যশস্যও আপনি আপনার ডায়েট প্ল্যানের অন্তর্ভুক্ত করতে পারেন । আল্লাহই সবচেয়ে ভাল জানেনঃ আল্লাহু আলাম| তথ্যসূত্রঃ WebMD

Leave a Reply

Close Menu