সালাতের ওয়াজিবসমূহ

সালাতের ওয়াজিবসমূহ

সালাতের ওয়াজিব নয়টি।

  • তাকবীরে এহরাম ছাড়া অন্যান্য তাকবীর বলা।
  •     রুকুতেسبحان ربي العظيمবলা।
  •    ইমাম ও মুনফারেদ (একা সালাত আদায়কারী) এর জন্য রুকু হতে উঠার সময়سمع الله لمن حمدهবলা।
  •     ইমাম মুক্তাদি ও একা সালাত আদায়কারীর জন্যربنا ولك الحمدবলা।
  •    সেজদায়سبحان ربي الأعليবলা।
  •    দুই সেজদার মাঝেرب اغفرليবলা।
  •    প্রথম বৈঠক।
  •    প্রথম বৈঠকে তাশাহুদ পড়া।
  •     শেষ বৈঠকে দুরুদ শরীফ পড়া।

রুকন ও ওয়াজিবের মধ্যে প্রার্থক্য

রুকন আদায় না করলে সালাত হয় না। যদি কোন মুসাল্লি­ ইচ্ছা করে কোন রুকন ছাড়ে তবে তার সালাত বাতিল হয়ে যায়, আর অনিচ্ছায় ছাড়লে তা স্মরণ করার পর আদায় করতে হবে এবং সালাতের বাকী কার্যাদি সম্পন্ন করে সেজদা সাহু করবে। আর যদি মুসল্লি ইচ্ছা করে ওয়াজিব ছেড়ে দেয়, তার সালাত বাতিল হয়ে যাবে। আর যদি ভুলে ছেড়ে দেয় সেজদা সাহুর মাধ্যমে ক্ষতি পুরণ দিবে।

সালাতের সুন্নতসমূহ

সালাতের ওয়াজিব ও আরকান ছাড়া বাকী অন্যান্য র্কাযাবলী সুন্নাতের অর্ন্তভুক্ত।
সুন্নাত দুই প্রকার :

এক: কথ্য সুন্নত

যেমন, সালাত শুরুর দুআ বা সানা পড়া, আমীন বলা। সকল সালাতে প্রথম দুই রাকাআতে সুরা ফাতেহার পর কুরআনের যে কোন স্থান হতে তিলাওয়াত করা, সালাতে দুনিয়া ও আখেরাতের কল্যাণ কামনা করা, বিশেষ করে সেজদায় বেশী বেশী করে দুআ করা এবং শেষ বৈঠকে বেশী বেশী করে প্রার্থনা করা। মাগরিব, এশার প্রথম দুই রাকাআত ফরযে আর জুমুআ ও ঈদের সালাতে ইমামের জন্য ক্বিরাত উচ্চস্বরে পড়া আর মুক্তাদির জন্য সব সময় ক্বিরাত নিম্নস্বরে পড়া।

দুই: অঙ্গ প্রত্যঙ্গের কার্যাদি

১-তাকবীরে তাহরীমার সময় দুই হাত কাঁধ বরাবর উঠানো। এছাড়া রুকুতে যাওয়া, রুকু হতে উঠা এবং প্রথম তাশাহুদের পর তৃতীয় রাকাআতের জন্য উঠার সময় দুহাত উঠানো।
২-দাঁড়ানো অবস্থায় ডান হাতকে বাম হাতের পিঠের উপর মিলিয়ে রাখা।
৩-সেজদার জায়গায় দৃষ্টি রাখা।
৪-রুকুতে দুই কব্জিকে দুই হাঁটুর উপর রাখা।
৫-সেজদার সময় প্রথমে দুই হাঁটু, তারপর দুই হাত, তারপর চেহারা মাটিতে রাখা।
৬-দুই সেজদার মাঝে প্রথম তাশাহুদ ও শেষ তাশাহুদে বসা অবস্থায় দুই হাতকে দুই উরুর উপর রাখা।
৭-বৃদ্ধা আঙ্গুল ও মধ্যমা দ্বারা বৃত্ত বানানো এবং তাশাহুদে দুআর সময় আঙ্গুল দ্বারা ইশারা করা।
৮-প্রথম সালামে ডান দিক আর দ্বিতীয় সালামে বাম দিক মাথা ঘুরানো।
৯- প্রথম রাকাআত ও তৃতীয় রাকাআত শেষ করার পর বিশ্রাম নেয়ার জন্য বসা

আযান-ইকামতের প্রচলন ও বিধান

আযানের উদ্দেশ্য হল, সালাতের সময় সম্পর্কে মানুষদের অবহিত করা। ইকামতের উদ্দেশ্য হল, উপস্থিত লোকদের সালাত আরম্ভ হওয়া সম্পর্কে অবহিত করা। আযানও ইকামত বিশেষভাবে পাঁচ ওয়াক্ত সালাত ও জুমার সালাতেই হয়ে থাকে। এছাড়া অন্যান্য সালাত দুই ঈদের সালাত, ইস্তেসকার সালাত, কুছফের সালাত এবং তারাবীর সালাতে আযান ও ইকামত হয় না।

আযান ইকামতের বিধান হল মুকীম বা স্থানীয় পুরুষের ক্ষেত্রে ফরযে কেফায়া, তবে মহিলাদের ক্ষেত্রে নয়।

যদি উপযুক্ত কোন ব্যক্তি আযান ইকামত দেয় তবে অন্যরা দায়িত্বমুক্ত হবে।

আযানের বাক্য

আযানের বাক্য ১৫টি: তাহল চার বার الله أكبر দুই বার أشهد أن لا إله إلا الله দুই বার أشهد أن محمدا رسول الله দুই বার حي على الصلاة দুই বার حي على الفلاحদুইবার ألله أكبر এবং একবার لا إله إلا الله বলা। ফযরের সালাতের আযানে حي على الفلاح বলার পর الصلاة خير من النوم বৃদ্ধি করে বলবে।

ইকামতের বাক্য

ইকামতের বাক্য ১১টি
الله أكبر দুই বার أشهد أن لا إله إلا الله এক বার أشهد أن محمدا رسول الله এক বার حي على الصلاة এক বার حي على الفلاح এক বার قد قامت الصلوة দুই বার الله أكبر দুই বার لا إله إلا الله একবার।

আযান ও ইকামত শুনার সময় মুয়াজ্জেনের সাথে সাথে আযান ও ইকামতের বাক্যাবলী বলা সুন্নাত। তবে حي على الصلاة এবং حي على الفلاح বলার সময়لاحول لا قوة إلا بالله বলা সুন্নাত। তারপর নবী করিম রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর উপর দুরুদ পড়বে এবং আল্লাহর নিকট প্রার্থনা করবে।
اللهم رب هذه الدعوة التامة والصلاة القائمة آت محمدا الوسيلة والفضيلة وابعثه مقاما محموداً الذي وعدته.

সুন্নত সালাত

সালাতে অনেকগুলো রুকুন আছে যেগুলো আদায় করা ছাড়া সালাত শুদ্ধ হয় না।

1. সক্ষম ব্যক্তির জন্য ফরয সালাত দাঁড়িয়ে আদায় করা:

অর্থাৎ-ফরয সালাত দাঁড়ানোর ক্ষমতা থাকা অবস্থায় দাঁড়ানোর স্থানে দাঁড়িয়ে আদায় করা ফরয।

প্রমাণ, আল্লাহ বলেন :

وَقُومُوا لِلَّهِ قَانِتِينَ. (سورة البقرة : 238)

তোমরা আল্লাহর উদ্দেশ্যে বিনয়ের সাথে দাঁড়িয়ে থাক।

 

 

সালাত আদায়ের মাকরূহ সময়

বিশেষ কয়েকটি সময়ে সালাত পড়া মাকরূহ আর তা হল নিম্ন রূপ :
ফযরের নামাযের পর সূর্যোদয় পর্যন্ত। তবে যে ব্যক্তি ফযরের দুই রাকাআত পড়তে পারেনি, সে অবশ্যই দুই রাকাআত ফযরের সুন্নাত পরে পড়ে নিবে।
সূর্যোদয়ের সময় হইতে সূর্য এক ধনুক পরিমান উঁচু হওয়া পর্যন্ত।
সূর্য আকাশের মধ্যভাগে অবস্থানকাল থেকে পশ্চিম আকাশের দিকে
ঢলে পড়া পর্যন্ত। (অর্থাৎ যোহরের সালাতের সামান্য পূর্বে)
আছরের সালাতের পর সূর্যাস্ত র্পযন্ত। সূর্যাস্তের মুহূর্তে।

সালাতের দুআ সমূহ

সালাতের সালাম ফিরানোর পর সুন্নত হল তিন বার أستغفرالله বলবে। তারপর নিম্ন দুআগুলি পড়বে।
اللهم أنت السلام ومنك السلام تباركت يا ذا الجلال والإكرام.
হে আল্লাহ তুমি শান্তিময় আর তোমার নিকট হতেই শান্তির আগমন । তুমি কল্যানময় হে মহা মার্যাদাবান!
لاإله إلا الله وحده لاشريك له له الملك و له الحمد وهو علي كل شيء قديراللهم لا مانع لما أعطيت ولامعطي لما منعت ولا ينفع ذا الجد منك الجد.
আল্লাহ ছাড়া সত্যিকার কোন মাবুদ নেই, তিনি একক, তার কোন শরীক নেই । রাজত্ব ও র্কতৃত্ব এক মাত্র আল্লাহরই আর সকল প্রশংসা এক মাত্র আল্লাহরই, তিনি সকল কিছুর উপর ক্ষমতাবান। হে আল্লাহ তুমি যা প্রদান কর তা বাধা দেয়ার আর কেউ নেই আর তুমি যা দিবেনা তা প্রদান করার মত আর কেউ নেই তোমার আযাব হতে কোন বিত্তশীল পদর্মযাদার অধিকারীকে তার ধন সম্পদ বা পদর্মযাদা রক্ষা করতে পারেনা।

لا إله إلا الله وحده لاشريك له له الملك و له الحمد وهو علي كل شيء قدير لاحول ولا قوة إلا با لله لا إله إلا الله ولا نعبد إلا إياه له النعمة وله الفضل و له الثناء الحسن لا إله إلا الله مخلصين له الدين و لو كره الكافرون.
আল্লাহ ছাড়া সত্যিকার কোন মাবুদ নেই, তিনি একক, তার কোন শরীক নেই । রাজত্ব ও র্কতৃত্ব এক মাত্র আল্লাহরই আর সকল প্রশংসা এক মাত্র আল্লাহরই, তিনি সকল কিছুর উপর ক্ষমতাবান। কোন পাপকাজ, রোগ-শোক, বিপদ-আপদ হতে মুক্তি পাওয়ার কোন উপায় এবং সৎ কাজ করার কোন ক্ষমতা নেই আল্লাহর তাওফীক ছাড়া কারোই নেই। আল্লাহ ছাড়া ইবাদত যোগ্য কোন মাবুদ নেই, আমরা তারই ইবাদত করি। সকল নেয়ামত তার, সকল অনুগ্রহ এবং সকল উত্তম প্রশংসা তার। তিনি ছাড়া আর কোন সত্যিকার ইলাহ নেই। আমরা তার দেয়া জীবন বিধান এক মাত্র তার জন্যই একনিষ্টভাবে মান্য করি। যদিও কাফেরদের নিকট ইহা অপ্রীতিকর।

اللهم أعني على ذكرك شكرك و حسن عبادتك.
হে আল্লাহ! তোমার যিকির, তোমার শুকরীয়া এবং তোমার ইবাদত বন্দেগী সুন্দর ও সঠিকভাবে আদায় করতে আপনি আমাকে তাওফীক দান করুন।

اللهم إني أعوذبك من الجبن وأعوذبك أن أرد إلي أرذل العمر و أعوذبك من فتنة الدنيا وأعوذبك من عذاب القبر.
হে আল্লাহ! আমি আশ্রয় র্প্রাথনা করছি কাপুরুশষতা হতে আর আশ্রয় র্প্রাথনা করছি বার্ধক্যের চরম দুঃখ কষ্ট হতে আরো র্প্রাথনা করছি দুনিয়ার ফিৎণা-ফাসাদ এবং কবরের আযাব হতে।

اللهم إني أعوذبك من الكفر والفقر وعذاب القبر.
হে আল্লাহ! আমি আশ্রয় চাচ্ছি কুফর হতে এবং কবরের আযাব হতে।

তার পর سبحان الله ৩৩ বার, الحمد لله ৩৩ বার এবং আল্লাহু আকবর الله أكبر ৩৪ বার।
সুরা নাছ, ফালাক, এখলাছ প্রত্যেক সালাতের পর একবার করে আর মাগরিব ও এশার সালাতের পর তিন বার করে। এছাড়া প্রত্যেক সালাতের পর আয়াতুল কুরছি পড়া সুন্নাত।

মূল: গবেষণা পরিষদ, আল-মুনতাদা আল-ইসলামী
تأليف: اللجنة العلمية بالمنتدى الإسلامي
অনুবাদ: জাকেরুল্লাহ আবুল খায়ের
ترجمة: ذاكر الله أبو الخير
সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ শহীদ আব্দুর রহমান
مراجعة: عبد الله شهيد عبد الرحمن
সূত্র: ইসলাম প্রচার ব্যুরো, রাবওয়াহ, রিয়াদ, সৌদিআরব
المكتب التعاوني للدعوة وتوعية الجاليات بالربوة بمدينة الرياض

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply