শুরু করছি আল্লাহ্‌র নামে যিনি পরম করুনাময় অতি দয়ালু, মেহেরবান ও ক্ষমাশীল

শত্রুদমন কর


আল্লাহর ওয়াস্তে শত্রুতা কায়েম করার মাঝে ঈমানের পরিপূর্ণতা, মিষ্টতা ও প্রকৃত স্বাদ রয়েছে। মহানবী (সাঃ) বলেন, “যে ব্যক্তি আল্লাহর ওয়াস্তে কাউকে ভালবাসে, আল্লাহর ওয়াস্তে কাউকে ঘৃণা করে, আল্লাহর ওয়াস্তে কিছু দান করে এবং আল্লাহর ওয়াস্তেই কিছু দান করা হতে বিরত থাকে, সে ব্যক্তি পূর্ণাঙ্গ ঈমানের অধিকারী।”(সহীহ আবূ দাঊদ ৩৯১০ নং)

তুমি আল্লাহর ওয়াস্তে অপরকে ঘৃণা কর, ভালো থাকবে। তুমি আল্লাহর ওয়াস্তে অপরকে শত্রু ভাব, নিরাপদে থাকবে।

তুমি কারো শত্রুতে পরিণত হতে পার। কোন মানুষের শত্রু নেই? যে মানুষের নিকট থেকে কোন উপকারিতা অথবা অপকারিতা প্রকাশ পায় না, তার কোন শুত্রু নেই। যেহেতু যার উপকারিতা অথবা তাকে মন্দ লোকেরা এবং অপপকারিতা আছে তাকে ভালো লোকারা পছন্দ করে না।

চারটি জিনিস শত্রুতা সৃষ্টি করে; অহংকার, হিংসা, মিথ্যাবাদিতা ও চুগলখোরি।

এ সব কর্ম থেকে দূরে থাক, তাহলেই শত্রু সৃষ্টি হবে না।

তোমার শত্রু হল তিনজন; তোমার শত্রু, তোমার বন্ধুর এবং তোমার শত্রুর বন্ধু। এদের সকলের ব্যাপারে সাবধান থেকো।

শত্রু যখন তোমার প্রতি শত্রুতার হাত বাড়ায়, তখন পারলে তা কেটে ফেল। তা না পারলে তা চুম্বন কর। দুশমন যদি দুশমনি দিয়ে তোমার সম্মুখীন হয়, তাহলে উমি হিকমত দিয়ে তার মোকাবিলা কর। তাছাড়া তোমার জীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠবে।

মানুষ অনেক বড় বড় কষ্ট সহ্য করে নেয়, কিন্তু দুশমন-হাসি অনেক ক্ষেত্রে সহ্য করে ওঠতে পারে না। যে ব্যক্তি হীন লোকের শত্রুতা-দৃষ্টিতে পড়ে, সে ব্যক্তির মান মাঠে-ঘাটে হয়। তাই তোমাকে এড়িয়ে চলতে হবে, কঠিন হলেও সুকৌশলে অবলম্বন করে সাপের মাথা থেঁতলে দিতে হবে।

সতর্ক থেকো সখী থেকে, যে কোন মুহূর্তে সে তোমার শত্রুতে পরিণতি হতে পারে।

যে হাওয়া আনে হাসি, ঘন ঘন আসি আসি, সেই তো আবার ঝড় হয়ে যায়।

যে ফুলে আনে হাসি, সে ফুলেই দেয় গ ফাঁসি। ঘর থেকে সে পর হয়ে যায় ।

এই জন্যই মহানবী (সাঃ) বলেছেন, “তোমার বন্ধুকে মধ্যমভাবে ভালবাস (অর্থাৎ তার ভালবনাসাতে অতিরঞ্জন করো না।) কারণ, একদিন সে তোমার শত্রুতে পরিণত হতে পারে। আর তোমাদের শত্রুকে তুমি মধ্যম ভাবে শত্রু ভেবো। (অর্থাৎ, তাকে শত্রু ভাবাতে বাড়াবাড়ি করো না।) কারণ, একদিন সে তোমার বন্ধুতে পরিণত হতে পারে।”( সুতরাং তখন তোমাকে লজ্জায় পড়তে হবে।) (তিরমিযী ১৯৯৭, সহীহুল জামে, ১৭৮ নং)

খুব সাবধান! সখী থাকাকালে যা কিছু বলেছ, শত্রু হওয়ার পরে সব প্রকাশ হয়ে যাবে, সকল রুহস্য সে প্রকাশ করে দেবে, যাদের বিরুদ্ধে কিছু বলেছিলে, সে তাদেরকে সব পৌঁছে দেবে। আর তুমি তখন নিজের হাতের ছুড়া ঢিল আর ফিরিয়ে নিতে পারবে না। সুতরাং সেই প্রভাদের উপরেও আমল করো, যা মুরুব্বদীর নিকট থেকে শুনে থাক, ‘কাউকে ভাত দিয়ো, কিন্তু ভেদ দিয়ো না, জেনে রেখো, বন্ধু শত্রু হয়ে গেলে, তাতে ক্ষতি দ্বিগুণ।

Close Menu