শুরু করছি আল্লাহ্‌র নামে যিনি পরম করুনাময় অতি দয়ালু, মেহেরবান ও ক্ষমাশীল

স্বামীর সাথে খোশ গল্প


সময় বুঝে স্বামীর সাথে খোশগল্প কর। তবে কারো গীবত করো না, চুগলী করো না, কারো অন্যায় অভিযোগ করো না, কাউকে নিয়ে ব্যঙ্গ-উপহাস করো না। বোন, ভাবী, সতীন বা জা নিয়ে বিদ্বেষমূলক গল্প বলো না। কারণ, তা আদর্শ মহিলার গুণ নয়; উপরন্ত তাতে তুমি জ্ঞানি স্বামীর কাছে ছোট হয়ে যাবে। অথবা তাঁর মন খারাপ হয়ে সংসারে বিবাদ লাগবে।

স্বামী যখন স্ত্রীর সামনে অন্য মহিলার প্রশংসা করে, তখন আসলে নিজের স্ত্রীকে গালি দেওয়া হয়। অনুরূপ স্ত্রী যখন স্বামীর সামনে অন্য পুরুষের প্রশংসা করে তখন আসলে নিজের স্বামীকে গালি দেওয়া হয়। ভালবাসার শিশমহলে চিড় ধরে।

নিজের মূল্য দেখাতে গিয়ে বলো না যে, অমুক (বিশাল) ঘরে অথবা অমুক (বিরাট) লোকের সাথে আমার বিয়ের কথা হয়েছিল। তাঁর মানে আমি তাঁর উপযুক্ত ছিলাম।

আপনি আমার উপযুক্ত হলেও তুলনামূলক আপনি ছোট। নিজের মান বাড়াতে গিয়ে স্বামীকে হেয় প্রতিপন্ন করা হয়। অনেক বোকা মেয়ে তা বুঝে না।

কোন পর পুরুষের ছবি তোমার স্বামীর সামনে তাঁর প্রশংসা করো না, ‘দেখুন! কেমন হ্যান্ডসাম চেহারা!’

কোন পর পুরুষের ছবি দেখে তোমার স্বামী যদি তোমাকে বলে, ‘দেখ! ছেলেটা কত সুন্দর!’ তাহলে তাতে তুমি সায় না দিয়ে বলো, ‘আপনি ওর থেকে বেশী সুন্দর’।

কোন পর পুরুষের সাথে প্রেমকেলি করার স্বপ্ন দেখলে, সে স্বপ্ন স্বামীর কাছে; বরং কারো কাছে বলো না। কারণ, এ হল শয়তানের স্বপ্ন। এতে তোমার স্বামীর মন খারাপ হবে। তোমার মনের কল্পনায় সন্দেহ করবে।

কোন পর পুরুষ তোমার রূপ বা গুণের প্রশংসা করলে অবশ্যই তোমার মনে মনে খুশী বা গর্ব হবে, কিন্তু সেই প্রশংসার কথা খবরদার তোমার স্বামীকে বলো না।

কোন যুবতী তোমার স্বামীর প্রশংসা করলে, সে প্রশংসার কথা তোমার স্বামীর কাছে বল না।

কোন যুবতীর রুপ-সৌন্দর্য বা পোশাকের নিচের শোভা – কমনীয়তা স্বামীর কাছে বলো না। অন্য মহিলার সৌন্দর্যের কথা স্বামীর কাছে বলে নিজের মাথায় বেল ভেঙ্গো না অথবা স্বামীকে পাপচিন্তায় সহযোগিতা করো না। তাঁর গোপন অঙ্গ দেখে মজা নিয়ে স্বামীর কাছে গল্প করে বললে হয়তো বা স্বামী খোশ হবে, কিন্তু তাঁর ফলে তাঁর মনে ঐ মহিলার প্রতি যে আকর্ষণ সৃষ্টি হবে, তা হয়তো তুমি আন্দাজ করতে পারবে না।

মহানবী (সাঃ) বলেন, “কোন মহিলা যেন কোন মহিলাকে (নগ্ন) আলিঙ্গন করে অতঃপর সে তাঁর স্বামীর নিকট তা বর্ণনা না করে। (যাতে তা শুনে তাঁর স্বামী) যেন ঐ মহিলাকে (মনে) প্রত্যক্ষ দর্শন করে থাকে”।(বুখারী)

Close Menu